কমার্শিয়াল সিনেমা হবে না আমাকে দিয়ে

এক দশক আগে বিজ্ঞাপনচিত্রে অভিনয় করে আলোচিত হন বীথি রানী সরকার। এরপর চলচ্চিত্র আর নাটকে অভিনয় করলেও ছিলেন অনিয়মিত। চরকি প্রযোজিত ‘গুণিন’ চলচ্চিত্রে ভাবি (ইরেশ যাকেরের স্ত্রী) চরিত্রে অভিনয় করে আলোচিত হন তিনি। এ সূত্রে কথা হলো তাঁর সঙ্গে।

কমার্শিয়াল সিনেমা হবে না আমাকে দিয়ে

ঠিক বলেছেন। সেলিম ভাইয়ের সঙ্গে এটা আমার প্রথম কাজ। তবে তাঁর সঙ্গে পরিচয় ১০–১১ বছরের। তাঁর পরিচালিত ‘উজান গাঙের নাইয়া’তেও কাজ করার কথা ছিল। ‘স্বপ্নজাল’ চলচ্চিত্রের জন্যও ডেকেছিলেন। কিন্তু হয়ে ওঠেনি। এবার যখন কাজ করছিলাম, একটু নার্ভাসই ছিলাম।

বীথি রানী সরকার
বীথি রানী সরকার

একজন মানুষের সঙ্গে এমনি পরিচয় একটা জিনিস, কিন্তু পেশাগত কাজ করতে গেলে তখন তাঁর চেহারাটা অন্য রকমভাবে আবিষ্কার করা যায়। তখন ভাবতে থাকি, তিনি কি বকা দেন, নাকি রাগ করেন মানুষের সামনে, তাই নার্ভাস ছিলাম। শুটিংয়ের সময় বিষয়টা সেলিম ভাইও বুঝতে পেরেছিলেন। তখন তিনি বলেছিলেন, ‘তুই যখন ক্যামেরার সামনে থাকবি, তখন ভাববি, পৃথিবীতে তুই একা, আশপাশে কিচ্ছু নেই। তুই যা–ই মনে করিস, তা–ই বলবি।’ প্রচণ্ড স্বাধীনতা দিয়েছেন। চরিত্রের স্বাধীনতাও ছিল। আমি এটাও ভাবছিলাম, এত বড় মাপের সব অভিনয়শিল্পী, অথচ আমার চরিত্রটি খুবই ছোট। তার মধ্যে নিজেকে কীভাবে বের করে আনব—এ কথা শুনে তিনি বলছিলেন, ‘তোকে কিছুই করতে হবে না। শুধু যা লেখা আছে, তা–ই বলে যাবি। এরপর দেখবি যে সবাই তোকে খুঁজে নেবে।’ ছবিটি মুক্তির পর তো তা–ই দেখলাম। ভাবি চরিত্রটি নিয়ে সবাই কথা বলছে। আমি আশাই করিনি গুণিন–এর কাজটা দেখে সবাই প্রশংসা করবে, সাধুবাদ জানাবে। অনেকে মজা করে ‘ভাবি ভাবি’ বলে ডাকেন। সব মিলিয়ে গুণিন–এর অভিজ্ঞতা বেশ ভালো।