কোন ব্যাংকের সুদ সব থেকে বেশি দেয়

কোন ব্যাংকের সুদ সব থেকে বেশি দেয়

আপনারা সবাই ডিপিএস অর্থাৎ ডিপোজিট পেনশন স্কিম সম্পর্কে জেনে থাকবেন। যারা জানেন না তাদের জন্য আমি বলে দিচ্ছি। এটি হলো প্রতি মাসে একটি নির্দিষ্ট পরিমান টাকা ব্যাংকে জমা রাখা বা সঞ্চয় করা। এই ডিপিএস কে ভিন্ন ভিন্ন ব্যাংকে ভিন্ন ভিন্ন নামে ডাকা হয়। বাংলাদেশে যে সকল বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো রয়েছে সেখানে ডিপিএস এর বিপরীতে গ্রাহককে মাসিক, ত্রৈমাসিক, ছয় মাসিক ও বাৎসরিক সুদ দিয়ে থাকে তারা।
এছাড়া তাদের কাছে সর্বনিম্ন তিন মাস থেকে তিন বছর অথবা তারও বেশি সময়ের জন্য ব্যাংকে টাকা সঞ্চয় করার সুযোগ দেওয়া আছে। আপনার এই সঞ্চয় এর টাকার বিপরীতে ব্যাংক যে সুদ দেয় তার নাম ফিক্সট ডিপোজিট রেট বা স্থায়ী আমানতের সুদের হার, যাকে সংক্ষেপে এফডিআর বলে।
বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সর্বশেষ অর্থাৎ ডিসেম্বর মাসের তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, বাংলাদেশে রয়েছে ৫৯ টি ব্যাংক এবং তাদের প্রত্যেকের সুদের হার ভিন্ন ভিন্ন। ব্যাংক গুলো বিভিন্ন মেয়াদে সর্বনিম্ন ২ শতাংশ থেকে সর্বোচ্চ ৯ শতাংশ পর্যন্ত এফডিআর সুদ দিয়ে থাকে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক তথ্য অনুযায়ী বাংলাদেশে মোট নয়টি রাষ্ট্রমালিকানাধীন ব্যাংক রয়েছে। এই বেঙ্গলের মধ্যে রয়েছে ৩ টি বিশেষায়িত ব্যাংক। বাংলাদেশের যে সকল সরকারি ব্যাংকগুলোর রয়েছে সেগুলোতে এফডিআরএম ভিন্ন ভিন্ন মেয়াদে গ্রাহককে সাড়ে ৩ থেকে সর্বোচ্চ ৯ শতাংশ পর্যন্ত সুদ অফার করা হয়ে থাকে। সাধারণ ডিপোজিটে ৩.৫০ থেকে ৪ শতাংশ সুদ দিয়ে থাকে এই সরকারি ব্যাংকগুলো।
রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর মধ্যে আমাদের জানামতে সবচেয়ে বেশি সুদ দিয়ে থাকে রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক রাকাব।

  • ৩ থেকে ৬ মাসের কম সময়ের সুদ ৫.৫০ থেকে সাড়ে ৫ শতাংশ।
  • ৬ মাস থেকে ১ বছরের কম সময়ের জন্য ৫ দশমিক ৫০ শতাংশ‌ ।
  • ১ বছর থেকে ৩ বছর মেয়াদী সময় শুধু ৫.৭৫ থেকে ৭ শতাংশ ।
  • ৩ বছরের বেশি সময়ের ডিপোজিট এর জন্য ৬ থেকে ৯ শতাংশ সুদ দেওয়া হয়।

এছাড়া সোনালী ব্যাংক, অগ্রণী ব্যাংক, রূপালী ব্যাংক, জনতা ব্যাংক, বেসিক ব্যাংক, বিডিবিএল, পিকেবি ও বিকেবির সুদ ৫.২৫ থেকে ৬ শতাংশ পর্যন্ত সঞ্চয় এর উপর মুনাফা দিচ্ছে। বাংলাদেশ বেসরকারি যে সকল ব্যাংক আছে সেই ব্যাংকগুলোতে সাধারণ সঞ্চয় ২ থেকে ৪ শতাংশ সুদ দেয়া হয়। আর যে সকল সঞ্চয় মেয়াদ এর উপর নির্ভর করে সেগুলোতে ৪ থেকে ৬ শতাংশ সুদ দেওয়া হয়। তবে কিছু কিছু ব্যাংক রয়েছে যারা মেয়াদি আমানতের সর্বোচ্চ ৮ থেকে সাড়ে ৮ শতাংশ সুদ অফার করে থাকে। এই তালিকায় সবার ওপরে আছে চতুর্থ প্রজন্মের নতুন ব্যাংকগুলো যেমন মিডল্যান্ড, মেঘনা, পদ্মা ব্যাংক, ইউনিয়ন, মধুমতি, এসবিএসি প্রবাসী উদ্যোক্তাদের এনআরবি ব্যাংক, এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংক ও এনআরবি গ্লোবাল।
বাংলাদেশের বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো এর মধ্যে সবথেকে বেশি পরিমাণে রাখা দিচ্ছে চতুর্থ প্রজন্মের পদ্মা (সাবেক ফারমার্স) ব্যাংকটি।