ফেসবুক হোয়াটসঅ্যাপে ব্যক্তিগত গোপনীয়তা নিয়ে শঙ্কা কেন

পৃথিবীর অন্যান্য দেশের মত বাংলাদেশের মানুষও গত কয়েক বছরে অনলাইন প্ল্যাটফর্ম আর সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারে অভ্যস্ত হয়ে উঠেছে। এখন ফেসবুক, ইউটিউবসহ সামাজিক মাধ্যম আর ওটিটি প্ল্যাটফর্মের জন্য বাংলাদেশের টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি নতুন একটি নীতিমালার খসড়া প্রকাশের পর তাতে প্রস্তাবিত বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ব্যবহারকারীদের মধ্যে উদ্বেগ তৈরি হয়েছে।

ফেসবুক হোয়াটসঅ্যাপে ব্যক্তিগত  গোপনীয়তা নিয়ে শঙ্কা কেন

ঢাকায় একজন গৃহিনী নাদিয়া সিদ্দিকা অনি এক সময় ফেসবুকে বেশ সরব ছিলেন। তিনি দেশের আলোচিত বিভিন্ন ইস্যুতে নিজের মতামত তুলে ধরে পোস্ট দিতেন। কিন্তু ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন প্রণয়নের পর থেকে তিনি ফেসবুকে পোস্ট দেয়ার ব্যাপারে সতর্ক ছিলেন। নাদিয়া সিদ্দিকা অনি এখন নতুন একটি নীতিমালার খসড়ায় প্রস্তাবিত নির্দেশনা সম্পর্কে সংবাদমাধ্যম থেকে যা জানতে পেরেছেন, তাতে তার উদ্বেগ এবং ভয় আরও বেড়েছে।
তিনি বলেন, "আগে আমার কাছে মনে হতো যে, আমার একটা কিছু মনে হলো, আমি তা পোস্ট করলাম, সেটা মানুষের কাছে পৌঁছাচ্ছে। আমরা ফেসবুকে যে কথাবার্তা বলি, সেগুলোতো সামাজিক মাধ্যম মানুষের কাছে নিয়ে যায়।"

"সেক্ষেত্রে সবকিছুই যদি সরকার তাদের আওতায় নিয়ে আসে এবং সবকিছুতেই সরকার যদি মনে যে এটা অপরাধ, তাহলে যারা সোশ্যাল মিডিয়ায় লেখালেখি করে তারা ভয় পাবে যে কিছু আর লেখা যাবে না।আমাকে মানুষের কাছে পৌঁছানোর দরকার নাই, আমি আমার মধ্যেই থাকি। এরকম একটা মনোভাব তৈরি হচ্ছে," বলেন নাদিয়া সিদ্দিকা অনি।